উসমানীয় নেভির কাছে লজ্জাজনক পরাজয় হয়েছিলো আমেরিকান নেভির

by sultan

১৭৮৩ সাল। আমিরিকান নেভির জাহাজ এই প্রথম আন্তর্জাতিক জলসীমায় প্রবেশ করল। উচ্ছ্বাস বেশিদিন টিকলনা। আলজেরিয়ার কাছাকাছি, তৎকালীন SuperPower উসমানীয় খিলাফতের নেভির হাতে দুই বছরের মাথায় আমিরিকান জাহাজ অবৈধ প্রবেশের দায়ে ধরা পড়ে।

১৭৯৩ সালে আরও ১২ টি জাহাজ ধরা পড়ে।
উসমানীয় নেভিকে মোকাবিলার জন্য স্টীল নির্মিত জাহাজ তৈরি করার জন্য UScongress, প্রেসিডেন্ট ওয়াশিংটনকে ৭০০,০০০ স্বর্ণমুদ্রা ব্যায় করার অনুমতি প্রদান করে। কিন্তু বাস্তবতা হল, উসমানীয় খিলাফতের নেভিকে মোকাবিলার মত সামর্থ্যের ধারেকাছেও ছিলনা আমিরিকান নেভি।
ফলে এক বছরের মাথায়, খিলাফতের সাথে এক চুক্তি করতে বাধ্য হয় আমিরিকা, যার নাম ছিল “বারবারি চুক্তি”। এই ধরনের নামকরণের কারণ হচ্ছে, উসমানীয় খিলাফতের উত্তর আফ্রিকান উলাইয়্যার নাম ছিল বারবারি, যার মধ্যে আলজিয়ার্স, তিউনিস এবং ত্রিপোলি অন্তর্ভুক্ত ছিল।

চুক্তির শর্তগুলো ছিল নিম্নরূপ:
১. আমিরিকাকে এককালীন ৯৯২,৪৬৩ ডলার পরিশোধ করতে হবে।
২. ধৃত জাহাজসমূহ ফেরত দেয়া হবে এবং আটলান্টিক মহাসাগর ও ভূমধ্যসাগরে আমিরিকাকে প্রবেশাধিকার দেয়া হবে।

৩. এর বিনিময়ে আমিরিকান সরকার, খিলাফতকে ৬,৪২,০০০ ডলার সমমূল্যের স্বর্ণমুদ্রা প্রদান করবে।
৪. আমিরিকাকে বার্ষিক ১২,০০০ ডলার মূল্যের স্বর্ণমুদ্রা কর হিসেবে দিতে হবে। এবং এই বর্ষপঞ্জি ইসলামিক ক্যালেন্ডার অনুযায়ী গণণা করা হবে।

৫. আমিরিকার ধৃত নাবিকদেরকে ফেরত নেয়ার জন্য ৫,৮৫,০০০ ডলার পরিশোধ করতে হবে।
উপরন্তু খিলাফতকে কিছু স্টীল নির্মিত জাহাজও উপহার দিতে রাজি হয় আমিরিকা।

এই চুক্তি হয়েছিল তুর্কী ভাষায় এবং প্রেসিডেন্ট ওয়াশিংটন নিজে এতে সই করেছিল। আমিরিকার ইতিহাসে এটাই একমাত্র চুক্তি যেখানে আমিরিকা অন্য ভাষায় লিখিত চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে এবং কোন জাতিকে বার্ষিক কর প্রদানে সম্মত হয়েছে। এই চুক্তি খিলাফত ধ্বংসের আগ পর্যন্ত বলবৎ ছিল।

Those Were The Days…. না???
আমিরিকা খিলাফতের উত্থানে ভীত হবে, এটাই তো স্বাভাবিক।

0 মন্তব্য
1

Related Posts

মন্তব্য করুন

error: Content is protected !!